চাঁদাবাজির মামলায় চট্টগ্রামে ৬ পুলিশ সদস্য রিমান্ডে

  • 4
    Shares

দেশ দুনিয়া নিউজ:

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামের আনোয়ারায় গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) পরিচয়ে ব্যবসায়ী আবদুল মান্নানকে তুলে নিয়ে চাঁদাবাজির মামলায় ৬ পুলিশ সদস্যের প্রত্যেককে দু’দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। মঙ্গলবার চট্টগ্রাম সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শহিদুল্লাহ কায়সারের আদালত শুনানি শেষে এ আদেশ দেন।

চট্টগ্রাম জেলার কোর্ট পরিদর্শক হুমায়ুন কবির বলেন, চাঁদাবাজির মামলায় আনোয়ারা থানা পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৬ পুলিশ সদস্যের ৭ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুরের আবেদন করে। শুনানি শেষে আদালত সবার দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া পুলিশ সদস্যরা হলেন- মহানগর পুলিশ কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীরের বডিগার্ড কনস্টেবল মোরশেদ বিল্লাহ, মহানগর পুলিশের উপ-কমিশনার গোয়েন্দা (পশ্চিম ও বন্দর) মনজুর মোরশেদের বডিগার্ড কনস্টেবল মো. মাসুদ, দামপাড়া রিজার্ভ ফোর্স অফিসে কর্মরত কনস্টেবল শাকিল খান ও এসকান্দর হোসেন, সিএমপির সহকারী কমিশনার কর্ণফুলী কার্যালয়ের কম্পিউটার অপারেটর কনস্টেবল মনিরুল ইসলাম ও ডিবিতে (উত্তর) কর্মরত আবদুল নবী।

সোমবার মহানগর পুলিশের অনুমতি সাপেক্ষে আনোয়ারা থানা পুলিশ তাদের গ্রেফতার করে আদালতে পাঠালে আদালত কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। চট্টগ্রামে ব্যবসায়ীকে অপহরণ করে ১০ লাখ টাকা দাবি করলেও তারা এক লাখ ৮০ হাজার টাকা আদায় করে ব্যবসায়ীকে ছেড়ে দেন।

ভুক্তভোগী ব্যবসায়ী আবদুল মান্নান জানান, ৩ ফেব্রুয়ারি রাত ২টার দিকে আট ব্যক্তি পুলিশ সদস্য পরিচয় দিয়ে আনোয়ারার পূর্ব বৈরাগী গ্রামে তার বাড়িতে গিয়ে দরজায় নাড়া দেন। পুলিশ পরিচয় পেয়ে দরজা খুলে দেন তিনি। তারা তার ভাইকে খুঁজে না পেয়ে তার নামে মামলা আছে বলে বাসা থেকে তুলে নিয়ে যান। চারটি মোটরসাইকেলে করে আনোয়ারা থেকে পটিয়া থানার কৈয়গ্রাম রাস্তার মাথা নামক এলাকায় নিয়ে একটি টং চা দোকানের সামনে বসায়। সেখানে মামলার নানা কথা বলে ছাড়া পেতে গেলে ১০ লাখ টাকা দিতে হবে বলে জানান। তার কাছে এত টাকা নেই জানানোর পর তারা পাঁচ লাখ টাকা দিতে বলেন। পরে তিন লাখ চান।

আবদুল মান্নান জানান, তিনি তার চাচাতো ভাইদের ফোন করে ১ লাখ ৮০ হাজার ৫০০ টাকা তাদের হাতে তুলে দেন। তারা সেখান থেকে রাতে তাকে ছেড়ে দিয়ে পটিয়ার দিকে মোটরসাইকেলে চড়ে চলে যান। তার পর দিন এ ঘটনার কথা উল্লেখ করে আনোয়ারা থানায় তিনি লিখিত একটি অভিযোগ দেওয়ার পর তদন্ত করে পুলিশ আসামিদের গ্রেফতার করে।

দেশ দুনিয়া নিউজ/এমএম

  • 4
    Shares